শুক্রবার, ৩০ জুন, ২০১৭

জ্যোতিষ শাস্ত্র Astrology



প্রতিটি লগ্নের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য সম্বন্ধে জ্যোতিষ শাস্ত্রের বইতে অনেক বিস্তৃত ভাবে লেখা আছে। এগুলি নিতান্তই সাধারণ গুণাগুণ এবং এগুলি যে সবার ক্ষেত্রে নির্ভুল ভাবে মিলবে এমন নয়। গ্রহের বল ও অবস্থান অনুযায়ী বৈশিষ্ট্য পরিবর্তন হতে পারে। তবে এগুলি কিছুটা না বললে লগ্নের প্রকৃতি বর্ণনা অসম্পূর্ণ থেকে যায়। সেজন্য সংক্ষেপে এদের সম্বন্ধে কিছুটা বলা হল।
     

1) মেষ - এরা স্বাধীনচেতা, জেদী, হঠকারী ও সাহসী হয়। এদের কর্মক্ষমতা খুব বেশী। এদের একটু তোষামোদ করলে এরা অনেক বেশী উদ্বুদ্ধ হয়। এরা বৈজ্ঞানিক আলোচনা ভালোবাসে এবং একটু তর্কপ্রিয় হয়। এরা অনেক বাধা বিপত্তি সত্বেও এগিয়ে যেতে পারে। এরা শরীরে আঘাত বা মস্তিষ্ক সংক্রান্ত অসুখে ভুগতে পারে। হঠাৎ কোনো কিছুতে ঝাঁপিয়ে পড়ার প্রবণতা থাকতে পারে।


2)  বৃষ - এই লগ্নে জাত স্ত্রীলোকেরা সুশ্রী হতে পারে। এই লগ্নের জাতক জাতিকার অতিরিক্ত ইন্দ্রিয়পরায়ণ হওয়া সম্ভব। কল্পনা প্র্বণতা বা প্রভুত্ব করার ইচ্ছা বেশী মাত্রায় থাকতে পারে। স্মৃতিশক্তি ভাল থাকবে। তামসিক ভাব থাকতে পারে এবং প্ররোচিত হলে অতিমাত্রায় ক্রুদ্ধ হয়ে উঠতে পারে।


3) মিথুন - এদের মধ্যে একটু দ্বৈত ভাব থাকবে এবং কোনো সিদ্ধান্ত নিতে দ্বিধায় ভুগতে পারে। এর জাতকেরা চঞ্চলমতি ও অস্থিরচিত্ত হতে পারে। স্নায়ুর অসুখে এদের আক্রান্ত হবার প্রবণতা থাকে। এদের বিপরীত লিঙ্গের সঙ্গে মেলামেশায় সংযত হলে ভাল হয়।
    

4) কর্কট - সৌন্দর্যপ্রিয়, আত্মবিশ্বাসী, সদালাপী, আবেগপ্রবণ, দীর্ঘদেহী। এরা অত্যন্ত স্পর্শকাতর হতে পারে এবং বিয়ের ব্যাপারে হতাশায় ভুগতে পারে। এদের চট করে ঠাণ্ডা লেগে যেতে পারে এবং কফের প্রবণতা থাকে।


5)সিংহ - এরা গাম্ভীর্যপ্রিয় এবং এদের একটু অহমিকার ভাব থাকবে। এরা আত্মবিশ্বাসী হয় এবং অনায়াসেই অপরের শ্রদ্ধা আকর্ষণ করতে পারে। এরা অধ্যবসায়ী ও উদ্যোগী হতে পারে এবং রবি দুর্বল না হলে এরা অসাধারণ জীবনী শক্তির অধিকারী হয়। এই লগ্নের জাতিকারা অনেক সময়েই অত্যধিক স্বাধীনচেতা হওয়ায় বিবাহিত জীবন খুব সুখের হয় না।
             

6)কন্যা - সাহিত্য, শিল্প ও সঙ্গীতপ্রিয়। লেখালেখির অভ্যাস থাকতে পারে। মানসিকতার দ্রুত পরিবর্তন সম্ভব। আরাম প্রিয় ও ছেলেমানুষী স্বভাব হতে পারে। সাধারণতঃ স্ত্রী বা স্বামীর ব্যাপারে সুখী হয়।


7) তুলা - দূরদৃষ্টিসম্পন্ন; মানুষের সঙ্গে ব্যবহারে সমভাব। জন সাধারণের উপর প্রভাব থাকতে পারে। খুব তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্ত নিতে গিয়ে বাস্তবতা হারিয়ে যেতে পারে। বিবাহিত জীবন খুব সুখের নাও হতে পারে।


8) বৃশ্চিক - একটুতেই রেগে যেতে পারে। কর্কশ ব্যবহার। সবাইকে নিজের মতে টেনে আনার চেষ্টা। জেদী; চঞ্চলতা। গোপনীয়তা। এরা একটু প্রভুত্ব প্রিয় হতে পারে এবং ব্য্বহারের জন্য অনেক সময়েই অন্যের কাছে অপ্রিয় হয়।

9) ধনু - আদর্শপ্রিয়তা। রক্ষণশীলতা। এই লগ্নের জাতকেরা অনেক সময়েই জীবনে সফলতা লাভ করে। এদের মধ্যে আধ্যাত্মিক ভাব থাকে এবং ঈশ্বরে বিশ্বাসী হয়। এদের অনেকেই ভুল বুঝতে পারে কারণ এদের কথা বলার ধরণ অনেকের পছন্দ নয়।


10) মকর - পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে চলার ক্ষমতা থাকে। এদের জীবন ঘটনা বহুল ও দুঃখ্পূর্ণ হয়। এরা উচ্চাভিলাষী হয় এবং বাধা বিপত্তি অতিক্রম করতে ভালবাসে। এদের মধ্যে নিয়মানুবর্তীতা ও শৃঙ্খলাবোধ থাকবে। এদের স্ত্রী বা স্বামী ভাগ্য সাধারণ ভাবে ভাল। লোকের বিপদে এরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়।


11) কুম্ভ - দার্শনিক দৃষ্টিভঙ্গী, ধীর স্থির ও একাগ্রতা এই লগ্নের সাধারণ বৈশিষ্ট্য। এই লগ্নের জাতক একটু একাকীত্ব পছন্দ করতে পারে। এরা মানুষের চরিত্র খুব ভাল বুঝতে পারে এবং দূরদৃষ্টিসম্পন্ন হয়।


12) মীন - এই লগ্নের জাতকেরা সাধারণ্তঃ একটু রক্ষণশীল হয়। ঈশ্বরে বিশ্বাস থাকবে। আপাত উচ্ছ্বাসের মধ্যেও গাম্ভীর্য থাকবে। এদের একটু স্পর্শকাতর হওয়া সম্ভব। পায়ের অসুখে ভুগতে হতে পারে। স্বামী বা স্ত্রীর চর্মরোগ বা স্নায়ুর অসুখ হতে পারে।
মনে করিয়ে দেওয়া যেতে পারে যে এই বৈশিষ্ট্যগুলি নিতান্তই সাধারণ। এগুলি মিলতেও পারে নাও মিলতে পারে। কারণ কোনো জাতকের চেহারা বা চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য শুধু লগ্ন কোন রাশিতে তার উপর নির্ভর করে না। বিভিন্ন গ্রহের বল ও অবস্থানের উপর সেটা অনেকাংশেই নির্ভরশীল।